বিশেষ প্রতিবেদন

ভৈরবে ভেজাল গুড় ও মসলা কারখানাকে ভ্রাম্যমাণ আদালতে জরিমানা

মোঃ ছাবির উদ্দিন রাজু,ভ্রাম্যমান প্রতিনিধিঃ কিশোরগঞ্জের ভৈরবে ভেজাল গুড় তৈরি ও মসলা কারখানাকে জরিমানা করেছে ভ্রাম্যমান আদালত। সেই সাথে কারখানা দুটি থেকে জব্দ করা কয়েক লাখ টাকার ভেজাল গুড় ও মসলা ধ্বংসসহ সীলগালার নির্দেশও দেয় সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ জুলহাস হোসেন সৌরভ পরিচালিত ওই ভ্রাম্যমান আদালত। এরআগে র‌্যাব-১৪ ভৈরব ক্যাম্পের অধিনায়ক রফিউদ্দীন মোহাম্মদ যোবায়েরের নেতৃত্বে র‌্যাবের একটি টিম অভিযান চালায় কারখানা দুটিতে।

র‌্যাব জানায়, আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে ভৈরব বাজারের রানীর বাজার এলাকার রাজলক্ষ্মী ভান্ডার ও হলুদপট্টির রবিন মসলা কারখানায় এই অভিযান চালায় র‌্যাব। এ সময় ভৈরব বাজারে ভেজাল গুড় তৈরি ও মসলা উৎপাদনের দায়ে রাজলক্ষ্মী ভান্ডারে মালিক শিমুল পোদ্দার ও রবিন মসলা কারখানার কর্মচারী শাহাজাহানকে আটক করে।

অভিযানে রাজলক্ষ্মী গুড় ভান্ডারে চিনি, ডালডা, হাইড্রোজ, ফিটকিরি, চুনের সাথে পানি মিশিয়ে তৈরি করা মানব দেহের জন্য ক্ষতিকর ১০৫টি পাটা সমপরিমান প্রায় ৪০ মণ ভেজাল গুড় জব্দ করে। আটক করা হয় কারখানা মালিক শিমুল পোদ্দারকে।

একই সময় চাল ও কাঠের গুড়ার সাথে ক্ষতিকর রঙ মিশিয়ে হলুদ-মরিচের ভেজাল মসলা উৎপাদনের দায়ে রবিন মিয়ার মসলা কারখানার শ্রমিক শাহজাহান মিয়াকে আটক করা হয়। জব্দ করা হয় প্রায় ৬ মণ ভেজাল মসলা।

নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ জুলহাস হোসেন সৌরভ জানান, ভেজাল গুড় উৎপাদনের দায়ে কারখানার মালিক শিমুল পোদ্দারকে ৮০ হাজার এবং ভেজাল মসলা উৎপাদনের দায়ে মিল মালিক রবিন মিয়াকে ৪০ হাজার টাকা অর্থদন্ড ও কারখানা দুটি সিলগালা করা হয়েছে। জব্দকৃত ভেজাল মালামাল নদীতে ফেলে নষ্ট করা হয়েছে।
ভোক্তাগণের দাবী নিয়মিত অভিযান পরিচালনা করলে খাদ্যে ভেজাল অনেক কমে যাবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.